হালদা নদী : মাছের প্রাকৃতিক প্রজননক্ষেত্র

– মোঃ নাসিফ সাদাত
হালদা নদী হল কার্প জাতীয় মাছের প্রাকৃতিক প্রজননক্ষেত্র। এটি পৃথিবীর একমাত্র জোয়ার ভাটার নদী যেখানে মাছেরা প্রাকৃতিকভাবে ডিম ছাড়তে আসে। ফেব্রুয়ারী-মার্চ মাসের দিকে মাছ এসে অনুকূল পরিবেশের জন্য নদীতে অপেক্ষা করতে থাকে। এপ্রিল থেকে জুন মাস পর্যন্ত যেকোন অমাবস্যা বা পূর্ণিমার সময় মা মাছ ডিম ছাড়ে। ডিম ছাড়ার এই সময়কে স্থানীয় ভাষায় ‘জো’ বলে। ‘জো’ এর বৈশিষ্ট্য হল অমাবস্যা বা পূর্ণিমাতে বজ্রসহ বৃষ্টি হবে এবং নদীপথে পাহাড়ী ঢল নামবে। ঢলের পানিতে নদীতে জোয়ার আসবে। পূর্ণভাবে ডিম ছড়ার কিছুক্ষণ আগে পরিবেশ ডিম ছাড়ার উপযুক্ত কিনা তা যাচাইয়ের জন্য মা মাছ পরীক্ষামূলকভাবে ডিম ছাড়ে। একে স্থানীয়রা নমুনা বলে। নমুনা দেখতে পেলেই জেলেরা মহাসমারোহে ডিম সংগ্রহ শুরু করে।

জেলে কর্তৃক সংগৃহীত মাছের ডিম

জেলে কর্তৃক সংগৃহীত মাছের ডিম

হালদা নদীর কিছু বিশেষ বৈশিষ্ট্য থাকার কারণে এটি অন্যান্য নদী থেকে আলাদা। এ নদীতে কিছু বিশেষ ধরনের বাঁক দেখা যায় যাদেরকে বলা হয় অক্সবো বাঁক। এসব বাঁকে পানির স্রোতের গতিধারা থাকে যা অন্যান্য প্রয়োজনীয় অনুঘটক তৈরি করে মাছের প্রজননের বিশেষ পরিবেশ সৃষ্টি করে। এই বাঁকগুলোতেই মা মাছ ডিম ছাড়ে। সমগ্র নদীতে এমন ১১টি অক্সবো বাঁক দেখা যায়। এছাড়াও এতে অনেকগুলো পাহাড়ী ঝর্ণা নিপতিত হয়েছে। প্রতিটি ঝর্ণার উজানে রয়েছে এক বা একাধিক বিল। পাশাপাশি নদীর গভীরতা, PH, দ্রবীভুত অক্সিজেন, খাদ্যের প্রাচুর্যতা ইত্যাদি সবই মাছের বংশবৃদ্ধির অনুকূল। তাই মাছ অন্য কোন নদীর চেয়ে হালদা নদীকেই ডিম ছাড়ার উপযুক্ত স্থান হিসেবে বেছে নেয়।

map-halda river

error: Content is protected !!