ভাওয়াল জাতীয় উদ্যানে বিপন্নপ্রায় রামগদি পুনর্বাসন - NSSB

ভাওয়াল জাতীয় উদ্যানে বিপন্নপ্রায় রামগদি পুনর্বাসন

ভাওয়াল জাতীয় উদ্যানে পুনর্বাসন করা হল বিপন্নপ্রায় ৯টি রামগদি । 

শিল্পায়ন ও নগরায়নের ফলে বন্যপ্রাণীর আবাসস্থল ক্রমশই হ্রাস পাচ্ছে। নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের নবীগঞ্জ এলাকায় বসবাসরত বিপন্নপ্রায় রামগদি বা কালগুই (Water Monitor Lizard) গুলোর আবাসস্থল সংকটাপন্ন হয়ে যাওয়ায় বাংলাদেশ বন বিভাগ এদের ভাওয়াল জাতীয় উদ্যানে পুনর্বাসনের মাধ্যমে এক্সসিটু কনজারভেশন এর উদ্যোগ গ্রহণ করে। তারই ধারাবাহিকতায় দুই দিন ব্যাপি বন্যপ্রাণী ব্যবস্থাপনা ও প্রকৃতি সংরক্ষন বিভাগ, ঢাকা এর বিভাগীয় বন কর্মকর্তা জহির উদ্দিন আকনের সার্বিক তত্ত্বাবধানে ও বন্যপ্রাণী অপরাধ দমন ইউনিট এর বন্যপ্রাণী পরিদর্শক আব্দুল্লাহ আস সাদিক ও নিগার সুলতানার সহযোগিতায় দুইদিনে মোট ৯টি গুইসাপ (৪টি পুরুষ ও ৫ টি স্ত্রী) গাজীপুর ভাওয়াল জাতীয় উদ্যানে পুনর্বাসন করা হয়।

বন বিভাগের বন্যপ্রাণী অপরাধ নিয়ন্ত্রন ইউনিটের পরিদর্শক আব্দুল্লাহ আস সাদিক জানান, রামগদি বা কালগুই (Water Monitor Lizard) IUCN Red list ২০১৫ অনুযায়ী বাংলাদেশে এর অবস্থা সংকটাপন্ন । আবাসস্থল ক্রমশ ধ্বংস হয়ে যাবার ফলে এদের সংরক্ষণের উদ্যোগ গ্রহণ করা অতীব জরুরী হয়ে পড়েছিল। তবে আপাতত সব গুলো রামগদিকে  ট্রান্সফার করা হচ্ছে না। গবেষণা তথ্য অনুযায়ী প্রাপ্য মূল পপুলেশনের আপাতত ২৫% প্রাণি ট্রান্সফার করা হবে।  ভাওয়ালের পরিবেশের সাথে খাপ খাওয়াতে পারলে  গাজীপুরে এদের নতুন একটা পপুলেশন সৃষ্টি হবে , সেই সাথে বাকি ৭৫% পপুলেশন নারায়ণগঞ্জেই থাকবে। নারায়ণগঞ্জে কোন সংরক্ষিত এলাকা পাওয়া গেলে পর্যায়ক্রমে ওই এলাকাগূলোতেও এদের নতুন পপুলেশন গড়ে তোলা হবে। উক্ত পুনঃর্বাসন কাজে সার্বিক সহযোগিতা করেন ইন্ডীপেন্ডেন্ট ইউনাভারসিটির ইন্টার্ণ শিক্ষার্থী মইন মাহমুদ ও স্থানীয় একাত্তর মেম্বার সংগঠনের সদস্যবৃন্দ।